বহিঃবিভাগে করোনার নমুনা সংগ্রহ : ঝুঁকিতে রোগীরা 

বহিঃবিভাগে করোনার নমুনা সংগ্রহ : ঝুঁকিতে রোগীরা 

গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালের বহিঃবিভাগে সাধারণ রোগীদের  পাশাপাশি কাউন্টারে করোনায় আক্রান্ত রোগীরা নমুনা দেয়ায় সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ছে। 
জানা গেছে, করোনা রোগীর চিকিৎসায় বিশেষায়িত হাসপাতালের পরিবর্তে জেলা হাসপাতালের আউটডোর সংলগ্ন একটি রুমে করোনা রোগীর নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে। সেই আউটডোরে সেবা নিতে আসা অন্য রোগীরাও পড়ছেন ঝুঁকিতে। সেইসাথে করোনার নমুনা দিতে আসা রোগীদের সারিবদ্ধ লাইনের পাশেই সাধারণ রোগীর চিকিৎসা দেওয়ায় আতঙ্কে ভুগছেন রোগী ও তাদের স্বজনরা। 
পাশাপাশি দাঁড়িয়ে করোনার সন্দেহভাজন রোগী ও সাধারণ রোগী একসাথে সেবা নেওয়ায় দ্রুত সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে পারে। তাই করোনার নমুনা সংগ্রহ করতে আলাদা ভবন ব্যবহার করা উচিৎ বলে ভূক্তভোগীরা মনে করেন। করোনা রোগীদের জন্য সংযুক্ত গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সাজেদুর রহমান বলেন, করোনা চিকিৎসা একটি সম্মিলিত বিষয়। যেখানে সব ব্যবস্থা থাকতে হবে, সব বিষয়ের বিশেষজ্ঞ থাকতে হবে। সাধারণ রোগীর চিকিৎসা যে কোনো স্থানে হতে পারে কিন্তু করোনা রোগীর চিকিৎসা সব স্থানে হবে না। বিশেষ করে যেখানে সাধারণ রোগীর চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়, সেখানে পাশাপাশি দাঁড়িয়ে করোনার নমুনা দিতে আসা রোগীদের নমুনা সংগ্রহ করা একেবারেই অনুচিত। হাসপাতালের বাইরে আলাদা কক্ষ না থাকায় এই সংকট বলে তিনি জানান। তিনি আরও বলেন, বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। এ কারণে তারা নিজেরাও চরম ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন।