দুধ-খেজুর একসঙ্গে খেলে যা হয়

দুধ-খেজুর একসঙ্গে খেলে যা হয়

ফুড কম্বিনেশন অর্থাৎ ভিন্ন ধরনের খাবার একসঙ্গে খাওয়ার প্রবণতা বেড়েছে এখন মানুষের মাঝে। এর কারণ হলো স্বাস্থ্যের জন্য ফুড কম্বিনেশন খুব উপকারি। দুধের সঙ্গে খেজুর ভিজিয়ে খেলে দারুণ কিছু উপকার পাওয়া যায় । খেজুর খুব স্বাস্থ্যকর খাবার। শুকনো এই ফলে প্রচুর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকে। এছাড়া খেজুরে আয়রন, পটাশিয়াম, সেলেনিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম,কপার, ভিটামিন বি কমপ্লেক্স, ভিটামিন সি, ফাইবার, প্রোটিন থাকে প্রচুর। এছাড়া প্রাকৃতিক চিনি ফ্রুকটোজ ও গ্লুকোজ থাকে অনেক।

অন্যদিকে, দুধে প্রচুর ক্যালসিয়াম, রিবোফ্লোবিন, আয়রন, ভিটামিন বি টুয়েলভ, জিংক, ফসফরাস, পটাশিয়াম, ভিটামিন এ, ম্যাগনেশিয়াম ও ভিটামিন ডি থাকে। এক গবেষণায় দেখা গেছে দুধে প্রায় ৪৪ ধরনের পুষ্টি  উপাদান থাকে, যার মধ্যে ১৮ ধরনের অ্যামাইনো  এসিড, ৯টি মিনারেল, ১০টি ভিটামিন, ফ্যাট, প্রোটিন ও কার্বোহাইড্রেট থাকে।

দুধের সঙ্গে খেজুর মিশিয়ে খেলে তা স্বাস্থ্যের জন্য যেসব উপকার বয়ে আনে-

* হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ বাড়ায়: খেজুরে প্রচুর আয়রন থাকে, যা রক্তের গুরুত্বপূর্ণ অংশ হিমোগ্লোবিন বাড়াতে সহায়তা করে। এক গবেষণায় দেখা গেছে, দুধে খেজুর ভিজিয়ে তা কিছুক্ষণ গরম করার পর ১৮-৫৫ বছর বয়সী কয়েকজন মানুষকে প্রতিদিন সকালে খালি পেটে  খাওয়ানোর পর ১০ দিনের মধ্যে তাদের রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বেড়েছে। দুধ ও খেজুরের এই কম্বিনেশন খেলে অ্যানিমিয়া অর্থাৎ রক্তস্বল্পতা রোগ সেরে উঠে। 

* গর্ভবতীর জন্য উপকারী: এক গবেষণায় দেখা গেছে, গরুর দুধে খেজুর ভিজিয়ে নিয়মিত খেলে গর্ভবতীদের স্বাস্থ্য ভালো থাকে। আর এই কম্বিনেশন গর্ভে থাকা শিশুর হাড় ও রক্ত তৈরিতে ভূমিকা রাখে। এক্ষেত্রে রাতের বেলা ৫-৬ টি খেজুর রাতভর দুধের মধ্যে ভিজিয়ে রাখতে হবে। সকালে দুধের সঙ্গে খেজুরের মিশ্রণটা ভালোভাবে মিশিয়ে তার সঙ্গে একটু এলাচের গুঁড়ো ও এক চা-চামচ মধু মিশিয়ে নিয়ে খেতে হবে। 

বয়সের ছাপ দূর করে: খেজুর ও দুধে প্রচুর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকে বলে এই দুই খাবার বয়স বাড়ার কারণে মুখের চামড়া কুঁচকে যে বয়সের ছাপ পড়ে, তা দূর করে। এক্ষেত্রে দুধে কয়েকটি খেজুর রাতভর ভিজিয়ে রাখতে হবে। সকালে খেজুর ও দুধের মিশ্রণের সঙ্গে মধু মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এরপর ১৫-২০ মিনিট সেই পেস্ট মুখে মেখে রাখুন। পরে মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে একদিন এই পেস্ট মুখে মাখলে উপকার পাওয়া যাবে। 

* জীবনীশক্তি বাড়ায়: ১০০ গ্রাম খেজুরে প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় ১৫ শতাংশ শক্তি পাওয়া যায়। আর দুধে প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় প্রায় ৯ শতাংশ শক্তি থাকে। এ কারণে দুধের সঙ্গে খেজুর ভিজিয়ে খেলে শরীরে পর্যাপ্ত শক্তি পাওয়া যায়। তবে খেয়াল রাখতে হবে আপনি এই ফুড কম্বিনেশন কতোটা হজম করতে পারছেন। 

* প্রজনন ক্ষমতা বাড়ায়: দুধের সঙ্গে খেজুর ভিজিয়ে খেলে পুরুষ ও নারী দুই পক্ষেরই প্রজনন ক্ষমতা বাড়তে পারে। শক্তিশালী এই কম্বিনেশন সব বয়সী পুরুষ ও নারীর যৌনক্ষমতাও বাড়িয়ে দিতে পারে। এক্ষেত্রে কয়েকটি খেজুর ছাগলের দুধের সঙ্গে রাতভর ভিজিয়ে রাখতে হবে। সকালে ভালো করে মিশিয়ে তার সঙ্গে একটু এলাচ ও মধু যোগ করে খেয়ে নিতে হবে। 

শেষ কথা: আপনি যদি দুধ ও খেজুরের কম্বিনেশন থেকে ভালো ফল পেতে চান তাহলে বাজারের ভালো খেজুরটা বেছে নিন। আর দুধে সেই খেজুর ভেজানোর আগে অবশ্যই খেজুরগুলো ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে। প্রয়োজনে একজন পুষ্টিবিদের সঙ্গেও কথা বলে নিতে পারেন।