জুয়েলের হত্যাকারীদের শাস্তির দাবিতে গাইবান্ধায় মোমবাতি প্রজ্জ্বলন

জুয়েলের হত্যাকারীদের শাস্তির দাবিতে গাইবান্ধায় মোমবাতি প্রজ্জ্বলন

ধর্ম অবমাননার গুজব ছড়িয়ে লালমনিরহাটে শহিদুন্নবী জুয়েলকে পিটিয়ে ও পুুুুুড়িয়ে হত্যার প্রতিবাদে গাইবান্ধায় মোমবাতি প্রজ্জলন করা হয়।এসময় নৃশংস এই ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তার ও উস্কানিদাতাদের বিচারের দাবী জানান বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা।
লালমনিরহাটের বুড়িমারীতে আবু ইউসুফ মো. শহীদুন্নবী জুয়েল-কে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা ও মরদেহ পুড়িয়ে ফেলার বিচার দাবিতে মঙ্গলবার  সন্ধ্যায় গাইবান্ধা পৌর শহিদ মিনারে উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী, যুব ইউনিয়ন, ছাত্র ইউনিয়ন, মহিলা পরিষদসহ প্রগতিশীল সংগঠনসমূহের যৌথ উদ্যোগে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন ও প্রতিবাদী সাংস্কৃতিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) বিকেলে লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে কোরআন অবমাননার গুজব ছড়িয়ে আবু ইউসুফ মো. শহীদুন্নবী জুয়েল-কে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা ও মরদেহ পুড়িয়ে ফেলার ঘটনা ঘটে। নিহত জুয়েল রংপুর শহরের শালবন মিস্ত্রিপাড়ার আব্দুল ওয়াজেদ মিয়ার ছেলে। সহজ-সরল, নীতিবান ও ধার্মিক জুয়েল রংপুর জিলা স্কুল, কারমাইকেল কলেজ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরি এ্যান্ড ইনফরমেশন সায়েন্স বিভাগের সাবেক ছাত্র এবং রংপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের সাবেক গ্রন্থাগারিক।