জেলা বারের সভাপতি লাছু সম্পাদক বাবু

জেলা বারের সভাপতি লাছু সম্পাদক বাবু

স্টাফ রিপোর্টার: গাইবান্ধা জেলা বার এ্যাসোসিয়েশনের দ্বি-বার্ষিক নির্বচনে অ্যাডভোকেট আহছানুল করিম লাছু সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম বাবু সাধারণ সম্পাদক পদে বিজয়ী হয়েছেন। নির্বাচনে মোট ২শ ৫৯ জন ভোটার আইনজীবীর মধ্যে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন ২শ ৪৮ জন আইনজীবী। 

বৃহস্পতিবার জেলা বারে সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভোট গ্রহণ করা হয়। বিকেল ৫টা থেকে রাত বারোটা পর্যন্ত ভোট গণনা শেষে ফলাফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার অ্যাডভোকেট এটিএম সাইফুর রহমান চৌধুরী। নির্বাচনে সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ ১৯টি পদে ৪৭ জন প্রতিদ্বন্দিতা করেন। এরআগে শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় নির্বাচিত হন অ্যাডভোকেট শাহনেওয়াজ খান।

অ্যাডভোকেট এএমএম আহছানুল করিম লাছু ৯৭ ভোট পেয়ে সভাপতি নির্বাচিত হন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি সাবেক সভাপদি ফারুক আহম্মেদ প্রিন্স পেয়েছেন ৭৫ ভোট। সাধারণ সম্পাদক পদে ১২৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম বাবু, তার নিকটতম গোলাম সরওয়ার মো. আলমগীর পান ১১৭ ভোট।

সহসভাপতি পদে অ্যাডভোকেট নিরঞ্জন কুমার ঘোষ ১১৯ এবং মাহবুবুল আলম আকন্দ সেলিম  ৯২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট মো. সরওয়ার হোসেন বাবুল ১৮১ ও অ্যাড. জাহাঙ্গীর হোসেন ১২৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন।

কোষাধ্যক্ষ পদে অ্যাডভোকেট আবুল কাশেম শাহিদার ৯৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন, তার প্রতিদ্বন্দি খন্দকার মঞ্জুরুল করিম সোহেল পান ৯৩ ভোট। গ্রন্থাগার সম্পাদক পদে ১৭২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন অ্যাড. মাজহারুল ইসলাম সোহেল, তার প্রতিদ্বন্দি অ্যাড. শামসুজ্জোহা শামীম ভোট পান ৭২টি। সাহিত্য ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক পদে অ্যাড মাজেদুল ইসলাম প্রধান তুহিন ৭২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন, তার নিকটতম অ্যাড, সাইদ আহমেদ আজাদ জয় পান ৬৬ ভোট। সহ সাহিত্য ও সমাজকল্যান সম্পাদক পদে ১২৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন অ্যাড. মাহবুবার রহমান, তার প্রতিদ্বন্দি আবুল বাসার পান ১১৭ ভোট। অন্যদিকে নিরীক্ষক পদে ১৪৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন অ্যাড রেজা মিয়া। তার প্রতিদ্বন্দি অ্যাড. গোবিন্দ চন্দ্র পাল পেয়েছেন ৮৮ ভোট। সদস্য পদে অ্যাড. সোয়াইব আহমেদ ১৯৯ ভোট, অ্যাড. এস এম ফয়সাল হোসেন ১৮৩, অ্যাড এমএ মাজেদ সরকার ১৬৯, অ্যাড মাসুদার রহমান মাসুদ ১৬৫, অ্যাড. আব্দুর রহমান ১৬৩, অ্যাড শরিফুল ইসলাম রুবেল ১৬১, অ্যাড ফারুকুল ইসলাম ১৪২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। এদিকে অ্যাড. রতন লাল সাহা ও অ্যাড, শামসুজ্জোহা ১৩২ করে সমপরিমান ভোট পাওয়ায় তাদের ব্যাপারে আলোচনা সাপেক্ষে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।