সুন্দরগঞ্জে মাতৃভাষা দিবস পালিত

সুন্দরগঞ্জে মাতৃভাষা দিবস পালিত

সাইফুল মিলন: গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে যথাযথ মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে ২১ ফেব্রুয়ারি রোববার সুন্দরগঞ্জ শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে বাংলা বর্ণমালা ও ভাষা দিবসের পোস্টারে সজ্জিত করা হয় এবং অনুষ্ঠানে যোগদানকারী সকলেই কালো ব্যাজ ধারণ করেন। সকালে শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে উপজেলার সকল নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন সুন্দরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আফরুজা বারী। এ সময় ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি’ গানটি গাইতে থাকেন। শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে ভাষা শহীদদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়। পরে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে ভাষা শহীদদের প্রতি সম্মান জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। আলোচনা সভায় বক্তারা ভাষা আন্দোলনে ছাত্র, তরুণ, যুবসহ সকলের গৌরবোজ্জ্বল অবদানের কথা কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করেন। আফরুজা বারী তার বক্তব্যে ভাষা শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি ভাষা আন্দোলনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং অন্যান্য প্রগতিশীল রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতা-কর্মীদের অবদানের কথা কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করেন। তিনি একুশে ফেব্রুয়ারির আবেদন মনেপ্রাণে ধারণ করে পরবর্তী প্রজন্মকে বাংলা চর্চায় উৎসাহিত করতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশকে মেধাশূন্য করতে দেশের সূর্য সন্তানদের হত্যা করেছিল। এরই ধারাবাহিকতায় সুন্দরগঞ্জের মাটি ও মানুষের নেতা মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনকেও তারা হত্যা করেছে এবং ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। তাদেরকে শক্ত হাতে মোকাবেলা করা আজ সময়ের দাবি। সুন্দরগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আহসানুল করিম চাঁদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে উপজেলা চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম সরকার লেবু, পৌর মেয়র আব্দুর রশিদ রেজা সরকার ডাবলু, উপজেলা আ'লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক রেজাউল আলম রেজা, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি আতাউর রহমান মাস্টার, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মেহেদী হাসান রাসেল সহ আরও অনেকে বক্তব্য রাখেন।