কালের কন্ঠের ১২ বছর পূর্তি গাইবান্ধায় নানা আয়োজন

কালের কন্ঠের ১২ বছর পূর্তি গাইবান্ধায় নানা আয়োজন

গাইবান্ধায় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, মাস্ক বিতরণ ও গুণীজন সম্মাননার মধ্য দিয়ে রবিবার কালের কন্ঠের জন্মদিন পালিত হয়েছে। সকাল সাড়ে ১১টায়  প্রেস ক্লাব চত্বর থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে জেলা শহর প্রদক্ষিণ করে। শোভা যাত্রা থেকে অংশগ্রহণকারী অতিথি ও শুভ সংঘের কর্মীরা পথচারীদের করোণা প্রতিরোধে মাস্ক পরিয়ে দেন। 
স্বদেশ প্রত্যাবর্তণ দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতির প্রতি দাঁড়িয়ে শ্রদ্ধা জানান উপস্থিত সকলে।  গাইবান্ধা প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে শিল্পীদের সম্মিলক কন্ঠে  ‘আমরা শুভ সংঘ’ গানের সাথে কালের কন্ঠের জন্মদিনের কেক কাটেন প্রধান অতিথি সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুর রাফিউল আলম। এ সময় তার সাথে শুভ সংঘের কর্মীরা ছাড়াও শিশুরা অংশ নেয়। তিনি  গুণীজন হিসেবে কালের কন্ঠ  সম্মাননা স্মারক ক্রেস্ট তুলে দেন বীর মুক্তিযোদ্ধা এস কে মজিদ মুকুল, তবলাশিল্পী-সংগঠক  মাহমুদ সাগর মহব্বত, বাচিক শিল্পী দেবাশীষ দাশ দেবু, শুভ সংঘের উপদেষ্টা আলোকচিত্র শিল্পী কুদ্দুস আলম ও ‘শুভ সংঘ’ গানের সুরকার শিল্পী রিপণ চৌধুরী’র হাতে। তারা ক্রেস্ট গ্রহণ করে তাদের আনন্দ অনুভুতি ব্যক্ত করেন।  
আলোচনা পর্বে শুভ সংঘের জেলা সভাপতি অধ্যাপক তৌহিদা মাহমুদের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি প্রেস ক্লাব সভাপতি কে এম রেজাউল হক, সাধারণ সম্পাদক সাহিত্যিক আবু জাফর সাবু, শুভ সংঘের জেলা সম্পাদক লতা সরকার, রেডিও সারাবেলার সিনিয়র সেটশন ম্যানেজার মাহফুজ ফারুক, বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী তনু রায়, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শিরিণ আকতার, সাংবাদিক কায়সার রহমান রোমেল, উম্মে কুলসুম তালুকদার তুলনা,  নাট্যজন শামীম খন্দকার,শুভ সংঘের কর্মকর্তা তানজিমুল ইসলাম হাউলিদার, গোবিন্দগঞ্জ শুভ সংঘের সম্পাদক হুমায়ুন আহমেদ বিপ্লব, কালের কন্ঠের জেলা প্রতিনিধি অমিতাভ দাশ হিমুন প্রমুখ।
মুক্তিযোদ্ধা মজিদ মুকুল বলেন, শুভ কাজ মানে জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে স্বদেশকে ধারণ করা। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে স্বাধীনতা অর্জনের সেই ইতিহাসকে বুকে ধারণ করে মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে- সেই চেতনায় দেশ গড়ার কাজে নিয়োজিত করতে হবে নিজেকে। 
প্রধান অতিথি সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুর রাফিউল আলম বলেন, কালের কন্ঠ বাংলাদেশের তরুণদের নতুন স্বপ্ন দেখাচ্ছে। শুধু সংবাদ পবিবেশনা নয়, শুভ সংঘের মাধ্যমে তরুণরা এখন সংকট দু:সময়ে মানুষের জন্য কাজ করছে এবং শিক্ষা সংস্কৃতির ক্ষেত্রেও ভ‚মিকা রাখছে- যা দৃষ্টি এড়িয়ে যাবার মত নয়। তিনি আরও বলেন, কালের কন্ঠ ব্যতিক্রমি পরিবেশণার কারণেই দ্রæত পাঠকপ্রিয়তা অর্জন করেছে। তিনি জাতির জনকের স্বপ্ন সফল করতে তরুণদের আহবান জানান। 
শিল্পীদের গানের মধ্যদিয়ে শেষ হয় প্রায় ৩ঘন্টার এই আয়োজন। আমন্ত্রিত অতিথিরা ছাড়াও গাইবান্ধা, গোবিন্দগঞ্জ, পলাশবাড়ি, ফুলছড়ি ও গাইবান্ধা সরকারী কলেজ শাখা শুভ সংঘের বিপুল সংখ্যক কর্মী এতে অংশ নেন।